এসাইনমেন্ট সকল শ্রেণি

বীরপুরুষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কবিতা | কবিতা বীরপুরুষ | Kobita Birpurush Robindronath Thakur

           

বীরপুরুষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কবিতা  

কবিতা বীরপুরুষ  

Kobita Birpurush Robindronath Thakur

বীরপুরুষ 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর 

মনে করাে , যেন বিদেশ ঘুরে 

মাকে নিয়ে যাচ্ছি অনেক দূরে । 

তুমি যাচ্ছ পালকিতে মা চড়ে 

দরজা দুটো একটু ফাক করে , 

আমি যাচ্ছি রাঙা ঘােড়র পরে 

টগবগিয়ে তােমার পাশে পাশে । 

রাস্তা থেকে ঘােড়র খুর পুরে 

রাঙা ধুলােয় মেঘ উড়িয়ে আসে । 

সন্ধে হলো , সূর্য নামে পাটে , 

এলেম যেন জোড়াদিঘির মাঠে । 

ধু ধু করে যে দিক – পানে চাই , 

কোনােখানে জনমানব নাই , 

তুমি যেন আপন মনে তাই 

ভয় পেয়েছ – ভাবছ , ‘ এলেম কোথা । 

আমি বলছি , ‘ ভয় করাে না মা গাে , 

ওই দেখা যায় মরা নদীর সোঁতা ।

আমরা কোথায় যাচ্ছি কে তা জানে 

অন্ধকার দেখা যায় না ভালাে । 

তুমি যেন বললে আমায় ডেকে , 

দিঘির ধাল্লে ওই – যে কিসের আলো !  

এমন সময় হার্লে রে রে রে রে 

ওই যে কারা আসতেছে ডাক ছেড়ে ।

তুমি ভয়ে পালকিতে এক কোণে 

ঠাকুর – দেবতা স্মরণ করছ মনে , 

বেয়ারাগুলাে পাশের কাঁটাবনে 

পালকি ছেড়ে কঁপছে থরােথরাে । 

আমি যেন তােমায় বলছি ডেকে , 

আমি আছি , তয় কেন মা করো । 

তুমি বললে , “ যাস নে খােকা ওরে ‘ , 

আমি বলি , “ দেখাে – না চুপ করে । ” 

ছুটিয়ে ঘােড়া গেলেম তাদের মাঝে , 

ঢাল তলােয়ার ঝনঝনিয়ে বাজে , 

কী ভয়ানক লড়াই হলাে মা যে , 

শুনে তোমার গায়ে দেবে কাটা । 

কতাে লােক যে পালিয়ে গেল ভয়ে , 

কতাে লােকের মাথা পড়ল কাটা । 

এত লােকের সঙ্গে লড়াই কব্ল , 

ভাবছ খোকা গেলই বুঝি মরে । 

আমি তখন রক্ত মেখে ঘেমে 

বলছি এসে , ‘ লড়াই গেছে থেমে , 

তুমি শুনে পালকি থেকে নেমে 

চুমাে খেয়ে নিচ্ছ আমায় কোলে 

বলছ , ‘ ভাগ্যে থােকা সঙ্গে ছিল 

কী দুর্দশাই হতাে তা না হলে !

Tag: বীরপুরুষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কবিতা,  কবিতা বীরপুরুষ,  Kobita Birpurush Robindronath Thakur, বীরপুরুষ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *